মুসলিম নির্যাতন বন্ধ না হলে চীন দূতাবাস ঘেরাওয়ের হুঁশিয়ারি দিলেন মাওলানা মামুনুল হক

0
111

বাংলাদেশ খেলাফত যুব মজলিসের সভাপতি মাওলানা মামুনুল হক বলেছেন, চীনে চলমান মুসলিম নির্যাতনের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ সরকারের উচিত চীন রাষ্ট্রদূতকে ডেকে এনে কঠোর প্রতিবাদ করা। অবিলম্বে চীনকে এই নির্যাতন বন্ধ করতে হবে। অন্যথায় চীন দূতাবাস ঘেরাও করা হবে।

চীনের উইঘুর মুসলিমদের উপর নির্যাতনের প্রতিবাদে যুব মজলিস আয়োজিত এক মিছিল পরবর্তী সমাবেশে তিনি এই মন্তব্য করেন।

মিছিলটি আজ বৃহস্পতিবার বাদ আসর মুহাম্মাদপুরের আল্লাহ করীম মসজিদ থেকে শুরু হয়ে টাউনহলে গিয়ে শেষ হয়।

মাওলানা মুহাম্মাদ মামুনুল হক বলেন, চীন সরকার উইঘুর সম্প্রদায়ের উপর ইতিহাসের বর্বরতম নির্যাতন চালাচ্ছে। তারা আশ্রয় শিবির প্রতিষ্ঠা করে সেখানে মুসলিমদের ধর্মান্তরিত করতে বাধ্য করছে। মুসলিম নারীদের রাস্তাঘাটে প্রকাশ্যে হিজাব খুলে লাঞ্চিত করছে। এমনকি মুসলিম নারীদের জোরপূর্বক বৌদ্ধদের সাথে বিবাহ দিয়ে তাদের গর্ভে অমুসলিম সন্তান জন্ম দেয়ার মত অমানবিক কার্যক্রম পরিচালনার সংবাদ প্রকাশ পেয়েছে। অথচ বিশ্বের মুসলিম রাষ্ট্রগুলোর মাধ্যমেই চীনের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘটছে। এসময় তিনি মুসলিম দেশগুলোর অভিভাবক সংগঠন হিসেবে ওআইসিকে কার্যকর ভূমিকা রাখার আহবান জানান।

সংগঠনটির মহানগর সভাপতি মাওলানা রাকীবুল ইসলামের নেতৃত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা জহিরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় সমাজকল্যাণ সম্পাদক মাওলানা শরীফ হুসাইন, ঢাকা মহানগর দায়িত্বশীল মাওলানা আব্দুল্লাহ আশরাফ, মাওলানা জাহিদুজ্জামান, মাওলানা রূহুল আমীন মাওলানা মুর্শিদ সিদ্দিকী প্রমুখ।

এ প্রসঙ্গে মাওলানা মামুনুল হক তার ব্যক্তিগত পেইজে লিখেছেন,

উইঘুরের মুসলিমদের উপর চায়নার কম্যুনিস্টপন্থী সরকারের জুলুম বর্বরতার এক বিভৎস অধ্যায় ৷ ঝিংজিয়াং প্রদেশের ৪৫% জনসংখ্যা মুসলিম সম্প্রদায়কে বিভিন্ন উপায়ে নিশ্চিহ্ন করার ভয়াবহ সব পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে চায়না সরকার ৷ বন্দিশিবিরে আটকে রেখে ধর্মান্তর, মুসলিম নারীদেরকে জোর পূর্বক কম্যুনিস্টদের সাথে ঘর করতে বাধ্য করাসহ অবর্ণনীয় সব জুলুমের দাস্তান রচিত হচ্ছে উইঘুর মুসলিম জনপদের উপর ৷ অথচ মুসলিম বিশ্ব নির্বিকার ৷ অপর দিকে মুসলিম বিশ্বে বানিজ্য করে বিপুল অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে চায়না ৷ ষোলকোটি মুসলিমের বাংলাদেশ চায়নার বড় বানিজ্যমার্কেট ৷ আঞ্চলিক ভূ-রাজনৈতিক সমীকরণে পাকিস্তান চায়নার ঘনিষ্ট সহযোগী ৷ সবাই চাইলে উইঘুরের মুসলিম ভাই-বোনদের সাহায্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা সম্ভব ৷ আমরা আজ নেমেছিলাম প্রতিবাদে ৷ সবাই নামলে একটা বিহিত হতে পারে ৷ বাংলাদেশ পারে একটি ঐতিহাসিক ভূমিকা রাখতে ৷

সুত্রঃ ‌zamzam24

Facebook Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here