ব্রেকিং নিউজঃ জামিনে মুক্তি পেলেন বিএনপি নেতা হাবিব উন নবী খান সোহেল

0
320
জামিনে মুক্তি পেয়েছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল।

নারায়ণগঞ্জ কারাগারে থাকা বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা হাবিব উন নবী খান সোহেল মুক্তি পেয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধা ৭টা ৫ মিনিটে তিনি মুক্তি পান।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন সিকদার নয়াদিগন্তকে সোহেলের কারাগার থেকে মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল নারায়ণগঞ্জ কারগার থেকে সন্ধায় মুক্তি পেয়েছেন। কারাগারের গেটে তাকে অভ্যর্থনা জানান বিএনপির নেতাকমীরা। এ সময় হাবিব উন নবী খান সোহেলের স্ত্রী ও দুই কন্যা উপস্থিত ছিলেন।

গত বছর ৫ ফেব্রুয়ারি হাবিব উন নবী খান সোহেলকে তুলে নেয়ার অভিযোগ করেছিল বিএনপি। পরে তার মেয়ে জানান, তিনি নিরাপদ আছেন। এরপর দীর্ঘদিন আত্মগোপনে ছিলেন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সোহেল। সর্বশেষ খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর তার মুক্তির দাবিতে বেশ কয়েকটি কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন সোহেল। সেখানে বিএনপির মানববন্ধন চলাকালে সোহেলকে আটকের চেষ্টা করে গোয়েন্দা পুলিশ। তবে সবার চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে যান তিনি। এরপর আর জনসমক্ষে তাকে দেখা যায়নি। সব শেষ গত বছর ১ সেপ্টেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর জনসভায় তিনি বক্তব্য দেন। এরপর আবার চলে যান আত্মগোপনে। এর ১৭ দিন পর ১৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানের গোল চত্বর থেকে তাকে আটক করে পুলিশ।

ছাত্রদলের সাবেক এ সভাপতি বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা দক্ষিনের সভাপতি সোহেলের বিরুদ্ধে ১৪৩টি মামলা রয়েছে।

উৎসঃ ‌নয়া দিগন্ত

আরও পড়ুনঃ বিএনপি নেতা হাবিব উন নবী খান সোহেল জামিনে মুক্ত

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিবুন নবী খান সোহেল জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে তিনি নারায়ণগঞ্জ কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পান।

বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ের গণমাধ্যম শাখার সদস্য শায়রুল কবির খান এনটিভি অনলাইনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় গুলশান ২ নম্বর গোলচত্বর এলাকা থেকে হাবিবুন নবী খান সোহেলকে আটক করা হয়। এরপর দীর্ঘ ১০ মাস কারাভোগ করে আজ বিএনপির এ নেতা কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন।

এর আগে গত বছরের ৫ ফেব্রুয়ারি হাবিবুন নবী খান সোহেলকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ করে বিএনপি। পরে তাঁর মেয়ে জানান, তিনি নিরাপদ আছেন। এরপর দীর্ঘদিন আত্মগোপনে ছিলেন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি হাবিবুন নবী খান সোহেল। সবশেষ খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর তাঁর মুক্তির দাবিতে বেশ কয়েকটি কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন সোহেল।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিএনপির মানববন্ধন চলাকালে সোহেলকে আটকের চেষ্টা করে গোয়েন্দা পুলিশ। তবে সবার চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে যান তিনি। এরপর আর জনসমক্ষে তাঁকে দেখা যায়নি। সব শেষ গত বছরের ১ সেপ্টেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর জনসভায় তিনি বক্তব্য দেন। এরপর আবার চলে যান আত্মগোপনে। এর ১৭ দিন পর পুলিশের হাতে আটক হন তিনি।

উৎসঃ ‌এন টিভি

আরও পড়ুনঃ জামিনে মুক্তি পেলেন হাবিব-উন-নবী খান সোহেল

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিবুন নবী খান সোহেল আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নারায়ণগঞ্জ কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পান। ছবি : এনটিভি
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।

তার স্ত্রী দেশ রূপান্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মোট ৬৩৮ মামলায় জামিনে পেয়েছেন তিনি।

সোমবার যথাযথ আইনি প্রক্রিয়া ছাড়া হাবিব উন নবী খান সোহেলকে গ্রেপ্তার ও কোনো প্রকার হয়রানি না করতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

প্রায় ১০ মাস তিনি কারাগারে ছিলেন।

গত বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর গুলশান থেকে হাবিব-উন-নবী খান সোহেলকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। শায়রুল কবির জানান, বিএনপির এই নেতার নামে কয়েক শ মামলা রয়েছে। গ্রেপ্তারের পর তাঁকে বিভিন্ন কারাগারে রাখা হয়েছিল।

উৎসঃ ‌দেশ রুপান্তর

Facebook Comments

comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here